Thursday, 24 October 2019

কাজে অনিয়ম হলে ঠাই জেলে কড়া বার্তা আমিনুল হকের

কাজে অনিয়ম হলে ঠাই জেলে কড়া বার্তা আমিনুল হকের



সােনাই উন্নয়ন খণ্ডে ভিজিলেন্স মনিটরিং কমিটির সভায় বিভিন্ন জিপিতে চতুর্দশ অর্থ কমিশনের কাজ নিয়ে সােনাই মইনুল হক চৌধুরী অডিটোরিয়াম হলে এক পর্যালােচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

মঙ্গলবার সােনাই ব্লক ভিজিলেন্স মনিটরিং কমিটির আহ্বানে সভায় উপস্থিত ছিলেন অসম বিধানসভার উপাধ্যক্ষ তথা মনিটরিং কমিটির চেয়ারম্যান আমিনুল হক লস্কর , কাছাড় জেলা পরিষদের মুখ্য কাৰ্যবাহী আধিকারিক ( সিইও ) দিবাকর দুলে , সােনাই ডেভেলপমেন্ট ব্লকের ভিডিও লক্ষ্মীরানি দাস , ভিজিলেন্স মনিটরিং কমিটির দুই সদস্য আলতাফ হােসেন লস্কর , সুমিত কুমার দাস , পশ্চিম সােনাই জেলা পরিষদ সদস্য মানব সিংহ , আঞ্চলিক পঞ্চায়েত সভাপতি ইউসুফ , দিলদার লস্কর , সহ বিভাগীয় কর্তারা ।



এদিন ব্লকের আওতাধীন জিপির সকল সচিব ও পঞ্চায়েত প্রতিনিধির কাছ থেকে চতুর্দশ অর্থ কমিশনের কাজের পর্যালােচনা করেন মনিটরিং কমিটির চেয়ারম্যান তথা বিধানসভার উপাধ্যক্ষ আমিনুল হক ও জিলা পরিষদের সিইও দিবাকর দুলে । এতে বিভিন্ন জিপিতে কাজের অনিয়ম দেখা যায় । এতে সভায় ক্ষুব্ধ । হন আমিনুল হক লস্কর । গুণগত কাজ নিয়ে জিপির সচিবদের কাছ থেকে তথ্য চান আমিনুল ।

এতে সােনাবাড়িঘাট জিপির গ্রাম সভার রেজিস্টারির প্রসিডিঙে নেই স্বাক্ষর । সঙ্গে সঙ্গে এসব তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে সিইও কে নির্দেশ দেন উপাধ্যক্ষ আমিনুল হক । উপাধ্যক্ষ বলেন , আমি থাকতে কাজে অনিয়ম হতে দেবাে না  কাজে , দুর্নীতি হলে জায়গা হবে জেলে কেউ রেহাই পাবে না । এছাড়াও সােনাই আঞ্চলিক পঞ্চায়েতের অধীনে প্রত্যেক জিপির ২০১৫ - ১৬ , ২০১৬ - ১৭ ও ২০১৭ - ১৮ বর্ষের প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তির কাজের অগ্রগতি খতিয়ে দেখা হয় এবং ২০১৮ - ১৯ বর্ষের এস্টিমেটে অসঙ্গতি দেখা যায় ।

এতে প্রত্যেক জিপির সচিবদের পাঁচ দিনের মধ্যে এস্টিমেট ঠিকঠাক করে জমা করতে নির্দেশ দেওয়া হয়।
Disqus Comments