হাইলাকান্দি ৬৬ - র তালিকার সার্টিফায়েড কপি জমা দিয়েও ব্রাত্য Skip to main content

হাইলাকান্দি ৬৬ - র তালিকার সার্টিফায়েড কপি জমা দিয়েও ব্রাত্য

Hailakandi NRC - তে নাম নেই ! আত্মহত্যা গৃহবধূর



NRC আতঙ্কে হাইলাকান্দিতে মহিলার আত্মহত্যা


হাইলাকান্দি , ৪ সেপ্টেম্বর : হাইলাকান্দিতে এবার এনআরসি - র বলি হলেন এক গৃহবধু । এনআরসিতে নাম না থাকার কারণেই গায়ে কেরােসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন সাবিত্রী রায় ( ৪০ ) ।

সংবাদমাধ্যমের কাছে এমনটাই দাবি করলেন তার শাশুড়ি মীরা রায় । চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে । বুধবার দুপুর আনুমানিক একটা নাগাদ , হাইলাকান্দি শহরের এক নম্বর ওয়ার্ডে ।

 ঘটনার ব্যাপারে নিহত গৃহবধুর শাশুড়ি ও ভাশুরপাে বিশ্বজিৎ রায় জানান , এদিন দুপুরের দিকে হঠাৎ করে ঘরের বাথরুম থেকে ধোঁয়া নির্গত হওয়ার বিষয়টি নজরে আসলে অঘটনের আশঙ্কায় সঙ্গে সঙ্গে হলা - চিৎকার শুরু করেন ।



 এতে পরিবারের অন্যান্য লােকজন ছুটে এসে বাথরুমের দরজা খুলতে গেলে দেখেন সেটা ভিতর থেকে বন্ধ এবং গৃহবধূ সাবিত্রীও ঘরে নেই । তখন দরজা ভেঙে বাথরুমে প্রবেশ করলে দেখা যায় সাবিত্রীর সমস্ত শরীর আগুনে পুড়ে ঝলসে গেছে এবং অচেতন অবস্থায় তিনি বাথরুমের মেঝেতে পড়ে রয়েছেন ।

সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুল্যান্সের মাধ্যমে হাইলাকান্দি এস কে রায় সিভিল হাসপাতালে নিয়ে যান স্বামী দেবব্রত রায় ও ভাশুর মহাব্রত রায় । কিন্তু গৃহবধুর আশঙ্কাজনক অবস্থা দেখে হাসপাতালের চিকিৎসকরা । তাঁকে শিলচর মেডিকাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন । তবে মোকালে ! চিকিৎসা শুরু হওয়ার কিছুসময় পর বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সাবিত্রী রায় ।

 NRC তে নাম না আসার কারণেই পুত্রবধু গায়ে কেরােসিন ঢেলে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি করে বৃদ্ধা শাশুড়ি মীরা রায় জানান , সাবিত্রীর বাড়ি আগরতলায় ।

 আর NRC তে নাম উঠানাের জন্য তাদের পরিবারের সকলের নামের প্রয়ােজনীয় যাবতীয় নথিপত্র জমা হয়েছিল । এতে সাবিত্রীর পিতা মধুসূদন সাহার নাম থাকা ত্রিপুরার ১৯৬৬ সালের ভােটার তালিকার সার্টিফায়েড কপি ব্যবহার করে যােগসূত্র হিসেবে নবম শ্রেণি উত্তীর্ণ স্কুল সার্টিফিকেট জমা করা হয়েছিল ।

প্রকৃত ভারতীয় নাগরিক হিসেবে বৈধ নথিপত্র জমা দেওয়ার পরও প্রকাশিত এনআরসির - র কোনও তালিকাতেই নাম সন্নিবিষ্ট হয়নি । সাবিত্রীর । পরিবারের সকলের নাম এনআরসিতে আছে , অথচ ৩১ আগস্ট প্রকাশিত চূড়ান্ত তালিকায়ও স্থান হয়নিতার নাম ।

এনিয়ে হতাশাগ্রস্ত হয়ে দুশ্চিন্তার মধ্যে ছিলেন তিনি । আর এতেই মানসিক যন্ত্রণা সহ্যকরতে না পেরে সাবিত্রী আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে বলে দাবি করেন মীরা রায় । এদিকে , গৃহবধুর আত্মহননের খবরে এদিন ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় হাইলাকান্দি জেলাজুড়ে ।

 মর্মান্তিক এই ঘটনার খবর নিতে বিকেলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের বাড়িতে ছুটে যান কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জহির উদ্দিন লস্কর । তিনি এই ঘটনার জন্য গভীর দুঃখ প্রকাশ করে এনআরসি তালিকা ছুটদের মধ্যে থাকাআতঙ্ক দূর করতে ঘরে ঘরে গিয়ে এব্যাপারে তাদের সচেতন করার আহ্বান জানান ।


Comments