Wednesday, 10 July 2019

The incidence of Assam Japanese encephalitis virus is death every year Bangla News

Japanese encephalitis. japanese encephalitis virus.

অসম Japanese encephalitis. আঁতুরঘর প্রতি বছরই মৃত্যু হয় বহু লােকের


Japanese encephalitis. japanese encephalitis virus. what is japanese encephalitis. japanese encephalitis treatment. japanese encephalitis mosquito. japanese encephalitis in india.

japanese encephalitis virus.

 গুয়াহাটি , ৯ জুলাই ২০১৩ সাল থেকে রাজ্যে প্রতি বছরই জাপানি এনকেফেলাইটিসে ( জেই ) বেশকিছু লােকের মৃত্যু হচ্ছে ।

বর্তমানে জাপানিএনকেফেলাইটিসের জন্য দেশের মধ্যে একটা স্পর্শকাতর রাজ্যে পরিণত হয়েছে অসম । বছর কয়েক আগে এই রােগ উজান অসমের কয়েকটি জেলায় সীমাবদ্ধ ছিল !
কিন্তু এখন নিম্ন অসম ও বরাক উপত্যকায়ও এই রােগের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে ।

japanese encephalitis mosquito. 

 জাপানি এনকেফেলাইটিস রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে একটা বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে । ২০১৩ সালে জাপানি এনকেফেলাইটিসে রাজ্যে মৃত্যু হয়েছিল ১৩৪ জনের । ২০১৪ সালে মারণ রােগ কেড়ে নেয় ১৬৫ জনের জীবন । ২০১৫ - তে ১৩৫ ও ২০১৬ সালে ৯২ জন মৃত্যুমুখে পড়েন । ৮৭ জন মারা l
যান ২০১৭ তে । ২০১৮ তে এনকেফেলাইটিসে মৃত্যু হয় ৯৮ জনের । সূত্রটি বলেছে , জাপানি এনকেফেলাইটিসে মৃত্যু হওয়া লােকদের যে সমস্ত রিপাের্ট পাওয়া যায়নি | সেগুলি ধরলে সরকারি হিসেবের চেয়ে মৃতের সংখ্যা অনেক বেশি হবে । এবছর এই রােগের থাবায় ইতিমধ্যেই

৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে । ২০১৫ সাল পর্যন্ত এই রােগ উজানের কয়েকটি জেলায় সীমাবদ্ধ ছিল । কিন্তু এখন পরিস্থিতি পাল্টে গেছে । এখন নিম্ন অসম এবং এমনকি বরাক উপত্যকায়ও থাবা বসাচ্ছে এই রােগ । ফলে গােটা রাজ্যেই এই রােগের ক্ষেত্রে অত্যন্ত স্পর্শকাতর হয়ে |

japanese encephalitis in india.


japanese encephalitis in india. 


 পড়েছে - বলেছে সূত্রটি । কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুায়ী পশ্চিমবঙ্গ , উত্তরপ্রদেশ এবং বিহারের নির্দিষ্ট কিছু অঞ্চলে জাপানি এনকেফেলাইটিস সীমাবদ্ধ রয়েছে । গৌহাটি মেডিক্যাল ৩ কলেজ এবং হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের একজন বরিষ্ঠ চিকিৎসক বলেন , রােগ যেভাবে ছড়াচ্ছে তাতে গােটা রাজ্যই এর কবলে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে । তাই চিকিৎসা বিভাগের কাছে এটা একটা নতুন চ্যালেঞ্জ হয়ে পড়েছে বলেন তিনি । বুনাে জলজ পাখি , মশা ও শূকর থেকে এই রােগের জীবাণু ছড়াচ্ছে ।

 মশার সংখ্যা নিয়ন্ত্রণ ও শূকর ইত্যাদিকে বিচ্ছিন্ন রেখে এই রােগ প্রতিরােধ করা যেতে পারে । মশার কামড় থেকে বাঁচতে মশারি লম্বা হাতার জামা পরিধান এবং মশার ওষুধ কয়েল বা ভেপােরাইজার ইত্যাদি ব্যবহার করলে এই রােগ ঠেকানাে অনেকটাই সম্ভব হবে ।

japanese encephalitis treatment.

 জ্বর হলে তা হালকাভাবে না নিতে চিকিৎসক জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন । যদি কেউ জ্বরে ভুগছেন তাহলে দেরি না করে নিকটবর্তী হাসপাতালের দ্বারস্থ হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি ।


 ফার্মাসি থেকে ওষুধ না খেয়ে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত । চিকিৎসায় বিলম্ব হলে মামলা জটিল রূপ নিতে পারে বলে সতর্ক করে দেন ওই চিকিৎসক ।


[শিলচরে আর গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ বিশেষ খবর জানার জন্য  (Bangla News) ]

Disqus Comments