আড়াই মাস পর বাড়ি ফিরল বছর দশের নৃপেশ, Skip to main content

আড়াই মাস পর বাড়ি ফিরল বছর দশের নৃপেশ,

আড়াই মাস পর বাড়ি ফিরল বছর দশের নৃপেশ,

পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নৃপেশ রায় ।



 হাইলাকান্দি , ২৭ মে : দীছ আড়াই মাস পরে সুস্থ সবলভাবে ঘরে ফিরল হারিয়ে যাওয়া এক অবুঝ শিশু । রেল পুলিশের তৎপরতায় আবার মা বাবার কাছে ফিরে এলাে পুত্র । সােমবার রেল পুলিশ এবং জেলা শিশু কল্যাণ সমিতির যৌথ প্রচেষ্টায় ঘরে ফেরে হাইলাকান্দি জেলার কাটলিছড়া থানাধীন নিষ্কর গ্রামের দীনদরিদ্র অরুণ রায়ের দশ বছরের হাড়িয়ে যাওয়া পুত্র নৃপেশ । গত ১০ মার্চ হাইলাকান্দি জেলার কাটলিছড়া থানাধীন নিষ্কর গ্রামের অরুণ রায় এবং মীনা রায়ের বছর দশের ছেলে নৃপেশ রায় হঠাৎ বাড়ি থেকে হারিয়ে যায় । ঘটনার পর অনেক খোঁজখবর

আড়াই মাস পর বাড়ি ফিরল

করেও ছেলের কোনও খোজ খবর - অরুণ ও তার পিরবার । এনিয়ে পুরােটাই ভেঙে পড়ে অরুণের পরিবার । পুলিশে খবর দিয়েও | কোনও লাভ হয়নি । প্রতিদিন ছেলের অপেক্ষায় প্রহর গুনে চোখের জল ফেলে দিন কাটছিল অরুণ রায়ের পরিবারের । তবে বিধির বিধান । কিছুদিন । আগে হঠাৎ করে হাইলাকান্দি জেলা শিশু কল্যাণ সমিতির কাছে পশ্চিম বাংলার নিউজলপাইগুড়ির চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটি থেকে এক ফোন । আসে যে , তাদের জিম্মায় একটি শিশু রয়েছে , তার বাড়ি অসমের কাটলিছড়ায় । সঙ্গে এ বিষয়ে একটি চিঠিও পাঠায় নিউজলপাইগুড়ি শিশু কল্যাণ সমিতি । নিউ জলপাইগুড়ি রেল জংশনের রেলওয়ে পুলিশ ফোর্স । থেকেও একইভাবে হাইলাকান্দি সিডসিতে চিঠি আসে । পরে হাইলাকান্দি সিডসি কার্যালয় থেকে সেখানে ফোনে যােগাযােগ করলে তারা জানতে । পারেন , কাটলিছড়ার নিষ্কর গ্রামের অরুণ রায়ের দশ বছরের শিশু নৃপেশ রায় ১০ মার্চ বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ে । আর দূরপাল্লার ট্রেনে চড়ে নিউ জলপাইগুড়ি রেল জংশনে নেমে যায় । অজানা - অচেনা এক রেল জংশনে এসে এদিক - সেদিক ঘােরাফেরা করছিল সে । এভাবে স্টেশনে ঘােরাফেরা । করা একটি শিশুর দিকে নজর পড়ে নিউজলপাইগুড়ি জংশনের রেলওয়ে । পুলিশ ফোর্সের । তারা সঙ্গে সঙ্গে শিশুটিকে উদ্ধার করে নিউজলপাইগুড়ি চাইল্ডলাইনে খবর দেন । সেখানকার চাইল্ডলাইন কর্তৃপক্ষ নৃপেশ রায়কে তাদের জিম্মায় নিয়ে যায় । সেখানকার আরপিএফ এবং চাইল্ডলাইনকে বিস্তারিত জানায় শিশুটি । আর নৃপেশের মুখ থেকে সব শুনে নিউজলপাইগুড়ির আরপিএফ ও চাইল্ডলাইন ফোনে যােগাযােগ করেন হাইলাকান্দি সিডব্লসির সঙ্গে । এবং সেখানকার চাইল্ডলাইনকে হাইলাকান্দি সিডসি থেকে অনুরােধ জানানাে হয় , শিশুটিকে হাইলাকান্দিতে নিয়ে আসার জন্য । এভাবে দীর্ঘদিন কেটে যাওয়ার পর গত রবিবার নিউজলপাইগুড়ির চাইল্ডলাইনের দুই কর্মী নৃপেশকে নিয়ে হাইলাকান্দির । উদ্দেশে রওনা দেন ও সােমবার বেলা বারােটা নাগাদ তারা হাইলাকান্দি সিডব্লসি - তে নিয়ে আসেন । এখানে শিশুটিকে সিডব্লসির কাছে । আনুষ্ঠানিকভাবে সমঝে দেন নিউ জলপাইগুড়ি চাইল্ডলাইন কর্তৃপক্ষ । | অবশ্য সােমবার তাদের আদরের ছেলেকে হাইলাকান্দিতে নিয়ে আসা হচ্ছে জেনে সকাল থেকেই সিডব্লসি কার্যালয়ে ছেলের অপেক্ষা করছিলেন বাবা অরুণ রায় ও নৃপেশের দিদা - মামা । আর এদিন সিডসি - র ‘ সিটিং ’ - ও ছিল । বেলা বারােটা নাগাদ নিউজলপাইগুড়ি চাইল্ডলাইন কর্তৃপক্ষ । নৃপেশকে নিয়ে হাইলাকান্দি সিডব্লুসি কার্যালয়ে আসতেই ছেলেকে পেয়ে বুকে জড়িয়ে ধরে চোখের জল আটকাতে পারেননি বাবা অরুণ । নাতিকে । পেয়ে দিদা - র দুচোখ ভরে জল আসে । জেলা চাইল্ড প্রটেকশন ইউনিট । ( ডিসিপিইউ ) কার্যালয়ের আধিকারিক - কর্মী , সিডব্লসি - র মেম্বার ছাড়াও উপস্থিত অন্যান্য লােকদের মধ্যে এই দৃশ্য কার্যত হৃদয় স্পর্শ করেছে । দীর্ঘ আড়াই মাস পর ছেলেকে কাছে পেয়ে রীতিমতাে বাক্যহারা অরুণ । তবে ডিসিপিও এবং সিডব্লসি কে নৃপেশ জানিয়েছেন , কাটলিছড়ার বাড়ি থেকে । | বেরিয়ে সে সােজা শিলচর চলে যায় । সেখান থেকে শিলচর - শিয়ালদহ কাঞ্চনজংঘা এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠে পড়ে । আর নিউ জলপাইগুড়ি সেশনে ।


নেমে যায় । সেখানে সে কাউকেই চিনতে পারেনি । পুলিশ ( আরপিএফ ) এসে তাকে নিয়ে যায় । পরে এসব ‘ আঙ্গুলরা ’ ( নিউ জলপাইগুড়ি চাইল্ডলাইন ) তাকে তাদের কাছে নিয়ে যান । সেখানে তারা ( চাইল্ডলাইন ) তাকে খুব আদর - যত্ন করেছেন । তবে সবচেয়ে আশ্চর্যের হল , অজোগ্রামের দরিদ্র পরিবারের দশ বছরের এই শিশু সিডব্লসি কার্যালয়ে বসে অনর্গল । বাংলা , হিন্দি , অসমীয়া ভাষায় কথা বলে সবাইকে রীতিমতাে তাক লাগিয়ে দিয়েছে । পরে অরুণ রায় তার ছেলেকে সমঝে নিয়ে কাটলিছড়ার নিষ্কর গ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন । তবে অরুণ রায় অবশ্য জানিয়েছেন , তার এই ছেলেটি খুবই চঞ্চল প্রকৃতির । তবে ছেলেকে ফিরে পাওয়ায় নিউজলপাইগুড়ি স্টেশনের আরপিএফ , চাইল্ডলাইন এবং হাইলাকান্দির ডিসিপিইউ ও সিডব্লসির কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ।

Comments