সরকার গঠনে মােদিকে আমন্ত্রণ রাষ্ট্রপতির Skip to main content

সরকার গঠনে মােদিকে আমন্ত্রণ রাষ্ট্রপতির

সরকার গঠনে মােদিকে আমন্ত্রণ রাষ্ট্রপতির
সংসদে পৌঁছনাের পর মােদিকে অভ্যর্থনা রাজনাথ সিংয়ের । রয়েছেন অমিত শাহ । শনিবার নয়াদিল্লিতে ।

মধুসূদন শিকদার
 নয়াদিল্লি , ২৫ মে : নরেন্দ্র মােদির হাতে শনিবার রাতে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সরকার গঠনের আমন্ত্রণপত্র তুলে দিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ । কোবিন্দ । মােদিকে এদিন সংসদীয় দলের । নেতা নির্বাচন করার পর সংসদের । সেন্ট্রাল হল থেকে ৪০ সদস্যের জোট এনডিএ - র নেতারা মােদির । নেতৃত্বে সােজা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করতে যান । সরকার গড়ার দাবি জানানোর সঙ্গে সঙ্গে রাষ্ট্রপতি মােদিকে প্রধানমন্ত্রীর নিয়ােগপত্র হস্তান্তর করেন । সঙ্গে তাঁকে শপথ গ্রহণের দিনক্ষণ জানাতে অনুরােধ করেন । সেই সঙ্গে মন্ত্রীদের তালিকা দিতেও বলেন তিনি । রাষ্ট্রপতি । ভবনের এক টুইটে এ কথা জানানাে হয়েছে । এরই মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী । হিসেবে নরেন্দ্র মােদির দ্বিতীয় ইনিংস শুরু হয়ে গেল ।
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে বেরিয়ে এসে মােদি সাংবাদিকদের বলেন , দেশের জনতার জন্য কাজ | শুরু করে দিতে তাঁর সরকার আর এক মহর্তও দেরি করবে না । রাষ্ট্রপতি | আজ আমাকে প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য এক পত্র দিয়েছেন । এবার জনতা | আমার প্রতি বিপুল সমর্থন জানিয়েছেন । এবং তার পেছনে রয়েছে তাঁদের বিপুল প্রত্যাশা ' , বলেন | মােদি । । | ২০২২ সাল দেশের কাছে | গুরুত্বপূর্ণ । স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তির সামনে দেশ । রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বেরিয়ে এসে একথাই বললেন নরেন্দ্র মােদি । রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেও কবে শপথগ্রহণ | তা জানাননি দেশের ভাবী প্রধানমন্ত্রী । সূত্রের খবর , প্রধানমন্ত্রী পদে ৩০ মে শপথ নিতে পারেন নমাে । শনিবার সংসদের সেন্ট্রাল হলে হাজর ছিল বিজেপি সহ

এনডি এর সংসদীয় দলের নেতা  নির্বাচিত করা হল নরেন্দ্র মােদিকে । | সংসদে সেন্ট্রাল হলে এই বৈঠকে মােদির পাশে উপস্থিত ছিলেন লালকৃষ্ণ আডবাণী , মুরলী মনােহর যােশী ও অমিত শাহ । | এবারই প্রথম লােকসভা নির্বাচনে প্রার্থী করা হয়নি আডবাণীকে । তাঁর কেন্দ্র গান্ধীনগর থেকে লড়েছেন । অমিত শাহ । বয়সের কারণেই আডবাণীকে টিকিট দেয়নি বিজেপি । আর বর্ষীয়ান নেতাকে হেঁটে ফেলা হচ্ছে বলে সরব হন বিরােধীরা । যদিও জয়ের পর প্রথমেই বর্ষীয়ান এই দুই নেতার সঙ্গে দেখা করে তাঁদের আশীর্বাদ চেয়ে নেন মােদি ও অমিত শাহ । | বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ নিজের ভাষণে বলেন , আমি জোটসঙ্গী সকলকে এবং বিজয়ী সাংসদদের নরেন্দ্র মােদিকে এনডিএ - র নেতা ও দেশের প্রধানমন্ত্রী

হিসেবে বাছার জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি । ৩৫৩ জন সাংসদ সর্বসম্মতভাবে এদিন মােদিকে সেতা হিসেবে বেছে নিয়েছেন ।
সভার প্রথমে সংসদীয় দলনেতা হিসেবে তার নাম প্রস্তাব করেন শিরােমণি আকালি । দলের প্রধান প্রকাশ সিংহ বাদল । তার এই প্রস্তাব সমর্থন করেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী তথা । জেডিইউ প্রধান নীতীশ কুমার সহ অন্যরা । দ্বিতীয়বারের জন্য বিপুল ভােটে জিতে । ক্ষমতায় আসার পর এদিন সংসদের সেন্ট্রাল হলে মিলিত হন এনডিএ - এর সাংসদরা । এর আগে দুপুরে বিজেপির সদর দফতরে দলীয় সাংসদদের নিয়ে বৈঠক করেন নরেন্দ্র । মােদি ও অমিত শাহ । এই বৈঠকে মন্ত্রিসভার আকার আয়তন নিয়েও আংশিক আলােচনা হয়েছে । আর তার মধ্যেই ‘ বিগ ফোর ’ , স্মৃতি ইরানির পদোন্নতি ও অসমের । প্রতিনিধি সংখ্যা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা । [ সূত্রের দাবি , অসম নিয়ে বিশেষ আগ্রহী স্বয়ং মােদি এবং বিজেপি সভাপতি অমিত । শাহ । নির্বাচনী প্রচারে বারবার রাজ্যে গিয়েছেন তারা । ভােটের ফলেও তার সাফল্য মিলেছে । গতবার সাতজন দলীয় সাংসদ ছিলেন । এক লাফে সংখ্যাটি ৯ - এ পৌঁছে । গিয়েছে । সাফল্যের প্রতিদানে রাজ্য থেকে আরও বেশি মন্ত্রী করা হতে পারে বলে সূত্রে । খবর । বিদায়ী মন্ত্রিসভায় অসম থেকে একমাত্র রাজেন গোঁহাই রেল প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছিলেন । এ বার সেই সংখ্যাটি যে বাড়বে তা প্রায় নিশ্চিত । । উনিশের লােকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বিজেপি ‘ মিশন ১২৩ ’ ‘ বিজয় সংকল্প সমাবেশ শুরু করেছিল শিলচর থেকেই । মর্যাদাসম্পন্ন শিলচর লােকসভা আসনের রামনগর বাইপাস সংলগ্ন ময়দানে প্রধান বক্তা ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদি । গত লােকসভা নির্বাচনে বরাক উপত্যকার শিলচর ও করিমগঞ্জ লােকসভা আসনে । বিজেপিকে হারের মুখ দেখতে হয়েছিল । এবার ওই দুটি আসনই বিজেপির দখলে গেছে । বিরােধীমুক্ত বরাকে দুই সাংসদ যথাক্রমে শিলচর থেকে ডাঃ রাজদীপ রায় এবং করিমগঞ্জ থেকে কৃপানাথ মালার মধ্যে একজনের কপালে মন্ত্রিত্বের শিকে ছিড়লেও ছিড়তে পারে । এর পাশাপাশি , রাজ্যের মন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মাকে মােদি কেবিনেটে নেওয়া । হতে পারে বলেও চর্চা চলছে । নেডার চেয়ারম্যান হিমন্তু এবার দলকে উত্তরপূর্ব ভারত । থেকে মােট ২৫টি আসনের মধ্যে ১৭টি লােকসভার আসন পাইয়ে দিয়েছেন । এর স্বীকৃতি পেতে পারেন হিমন্তবিশ্ব । গত মন্ত্রিসভায় কিরেণ রিজেজু ও রাজেন গোঁহাইকে ধরে মাত্র দুইজন মন্ত্রী ছিলেন উত্তরপূর্ব থেকে । এবার মন্ত্রিত্বের সংখ্যা বাড়তে পারে পূর্বোত্তর থেকেও । এনিয়ে বিজেপির দলীয় স্তরে আলােচনা শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে ।

 এদিন সকালে অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সােনােয়ালের নেতৃত্বে বিজেপির নবনির্বাচিত ৯ জন সংসদ দিল্লিতে এসে পৌঁছেছেন । এনডিএ বৈঠকে যােগ দেবার । আগে মুখ্যমন্ত্রী সোয়েলি দিণিত অসম ভবনে রাজ্যের দলীয় সাংসদদের সঙ্গে এক । বৈঠতে মিলিত হন । এই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্ৰী ছাড়াও জ্যের প্রভাবশালী মন্ত্রী তথা নেড়ার । আহ্বায়ক হিম বিশ্ব শৰ্মী উপস্থিত ছিলেন । নবনির্বাচিত সকল সাংসদদের অভিনন্দন জানান মুখ্যমন্ত্রী । লক্ষণীয়ভাবে , এবার রাজ্যে বিজেপির দুইজন প্রাক্তন সাংসদকে ধরে [ ৩জন সাংসদ প্রথমবারের জন্য সংসদে যাচ্ছেন । ডিব্রুগড়ের সাংসদ রামেশ্বর তেলী । এবং লখিমপুরের সংসদ প্রদান বরুয়া দ্বিতীয়বারের জন্য সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন । এছাড়া শিলচরের সাংসদ ডাঃ রাজদীপ রায় , করিমগঞ্জের কুপীনাথ মালা , সােরহাটের তপন গহৈ ' , তেজপরের পবলােচন দাস , মঙ্গলদৈ - এর দিলীপ শইক , গুয়াহাটির কুইন ওক এবং ডিফুর হনে সিং বে , এরা সকলেই প্রথমবারের জন্য সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন । লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রলশের পর শুইবার বিকেলে নরেন্দ্র মােদি । প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিয়েছেন । পাশাপাশি , মন্ত্রিসভার বাকি সদস্যরাও । রাষ্টপতির কাছে তাদের ইস্তফা দিয়ে দিয়েছেন । রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ ইস্তফা গুহণ করে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করতে বলেছেন । এদিন এনডিএ বৈঠকের পর রাষ্ট্রপতির সাঙ্গ দেখা করে মােদি সরদার গঠনের দাবি জানান । কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদন এদিন সকালেই ষােড়শ লােকসভা ভেঙে দেন রাষ্ট্রপতি । এ ব্যাপারে । রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে একটি বিবৃতি জারি করা হয় । সেখানে বলা হয় , ষোড়শ লোকসভা ভেঙে দেওয়ার ব্যাপারে রাষ্ট্রপতি মন্ত্রিসভার পরামর্শ গ্রহণ করেছেন । মােদির ইস্তফা গ্রহণ করলেও নতুন সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত তদারকি সরকার হিসেবে কাজ চালিয়ে যাওয়ার থাে বলেছেন রাষ্ট্রপতি । আগামী সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিতে পারেন নরেন্দ্র মােদি । ' বিগ ফোর ’ স্বরাষ্ট্র , অর্থ , প্রতিরক্ষা ও বিদেশ এই চারটি ১ শ্ৰক যে কোনও সরকারের কাছে গুরুপূর্ণ । কার - কার হাতে যাবে এই সব । গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকের দায়িত্ব সে নিয়ে ইতিমধ্যে আলােচনা তুঙ্গে রাজনৈতিক শিবিরের । অক্ষরে । বেশ কয়েক মাস ধরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলি কিডনির সমস্যায় ভুগছেন । তিনি বৃহস্পতিবার বিজয়ােৎসবেও যেতে পারেননি । তঁাকে নতুন মন্ত্রিসভা এবং মজি থেকে বাইরে রাখাল পরিকল্পনা রয়েছে দলের । দলের ঘনিষ্ঠ মহলের খবর , স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক যেতে পারে অমিত শাহের হাতে । অরুণ জেটলির অসুস্থতার জন্য অস্থায়ীভাবে বেশ । কয়েকবার অর্থমন্ত্রক সমালেছেন পীযূষ গোয়েল । সেক্ষেত্রে মহারাষ্ট্র থেকে নির্বাচিত রাজ্যসভং সাংসদ পীযূষ গােয়েলের হাতে যেতে পারে অর্থমন্ত্রক । বিদেশ ও প্রতিরক্ষা ম কের মত ওকপূর্ণ পদ দীর সাজ সামলেছেন দুই মহিলা । দুজনের কাজেই সাপ্রষ্ট প্রধানমন্ত্রী । সেক্ষেত্রে বিদেশমন্ত্রকের দায়িত্বে সুষমা স্বরাজ এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রকে নির্মলীতারমণ০ রাখা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে । যদিও সুষমাকে নিয়ে নানান সফ্যক্টর কাজ করাচ্ছে । সে ক্ষেত্রে বিদেশমন্ত্রকের দায়িত্ব নিৰ্মলার দখলেও যেতে পারে । অমিত শাহকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক দেওয়া হলে বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহকে স্পিকার পদে আনা হতে পারে । স্পিকার পদে আরেক মন্ত্রী হর্ষ বর্ধনের নামও চর্চায় রয়েছে । তবে প্রেমে স্পিকার হচ্ছেন সন্তোষ গাঙ্গেয়ার । তিনি সাংসদদের শপথবাক্য - করাবেন শাসকদলে আগ্রহ স্মৃতি ইরানিকে নিয়েও । কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ' জায়ান্ট কিলার ’ । আমেথিতে তিনি হারিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল sh মত হেভিওয়েটফে । প্রায় চার দশক ধরে আমেথি গান্ধী পরিবারের দুর্ভেদ । শ ' । আ নিজেও সেখানে তিনবার জিতেছেন । কিন্তু গত পাচ বছর ধরে মাটি কামড়ে আমেষ্টি । পড়ে থাকার পুরস্কার পেয়েছেন স্মৃতি তার স্বীকৃতি হিসেবে মন্ত্রক থেকে তারা পদোন্নতি প্রায় নিশ্চিত বলেই বিজেপি সূত্রের খবর । পুরনাে মন্ত্রীদের মধ্যে প্রক জাভড়েকর , মুখতার আব্বাস নাকভি , ধর্মেন্দ্র প্রধান থাকবেন । শরিকদের মধ্যে শিবসেনা তিনটি পূর্ণমন্ত্রক পেতে পারে জেডিইউ দু ' টি পূর্ণমন্ত্রী ও একটি প্রতিমন্ত্রীর পদ

Comments